প্রধান উপদেষ্টা পদে নিয়োগ করা হল আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে,রাজ্যের নতুন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: কেন্দ্রের চিঠির পরও আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ছাড়েনি রাজ্য। বরং সোমবার নিজের কর্মজীবন থেকে অবসর নিলেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা পদে তাঁকে নিযুক্ত করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের নতুন মুখ্যসচিব হলেন হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী।  এবং স্বরাষ্ট্রসচিব পদে তাঁর বদলে এলেন বি পি গোপালিকা। সোমবার নবান্নে একথা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা শোনা যায় মমতার মুখ থেকে ।

এদিন মমতা ব্যানার্জি বলেন, তাঁর কাজের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে চায় রাজ্য সরকার। ৩ বছরের জন্য নতুন ওই পদে তাঁকে নিয়োগ করা হয় বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, মুখ্যসচিব পদে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের কার্যকালের সময়সীমার মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে সম্মতি দিয়েছিল কেন্দ্র। এখন তাঁকে কেন্দ্রে কেন যোগ দিতে বলা হয়েছে, তা বলা হয়নি। এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি নাম না করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর তুমুল সমালোচনা করেন। তিনি দাবি করেন, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে কেন দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হল, কারণ কী, লেখা নেই।

উল্লেখ্য, ৩১ মে-ই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের অবসর গ্রহণের দিন ছিল। কিন্তু রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি এবং ঘূর্ণিঝড় যশ পরবর্তী পরিস্থিতি সামাল দিতে তাঁর কর্মজীবনের মেয়াদ তিন মাস বৃদ্ধির আবেদন জানায় রাজ্য। তাতে সায়ও দেয় মোদি সরকার। কিন্তু এর কয়েক দিনের মধ্যেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিল্লিতে বদলির নির্দেশ দেয় কেন্দ্র। এর পরই তুঙ্গে ওঠে টানাপোড়েন। সোমবার সকালে দিল্লিতে কাজে যোগ দেওয়ার নির্দেশ থাকলেও যাননি মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। বরং কর্মজীবনের মেয়াদ বৃদ্ধি না করে ৩১ তারিখই অবসর নিলেন তিনি। তবে ১ জুন থেকেই মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা পদে নতুন কর্মজীবন শুরু করছেন তিনি। আগামী তিন বছর এই পদেই নিযুক্ত থাকবেন তিনি। তবে মুখ্যসচিবের সঙ্গে এ হেন আচরণ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের তীব্র সমালোচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.