রাজ্যের অর্থমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন অমিত মিত্র,কে হবে অর্থমন্ত্রী? জল্পনা তুঙ্গে

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: সম্ভবত আর থাকবেন না রাজ্যের অর্থমন্ত্রী। পশ্চিমবঙ্গের অর্থমন্ত্রী হিসেবে দশ বছরের ইনিংসের পর রাজ্যের অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব ছাড়তে চলেছেন অমিত মিত্র। শারীরিক অসুস্থতার কারণে আর ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন না তিনি। তৃনমুল সূত্রে খবর, অর্থমন্ত্রী হিসেবে তার ৬ মাসের মেয়াদ শেষ হলেই ওই পদ থেকে সরে দাঁড়াবেন তিনি।

বর্তমানে অমিত মিত্র রাজ্য বিধানসভার সদস্য নন। নিয়ম অনুযায়ী নভেম্বরের আগে কোনও একটি কেন্দ্র থেকে উপনির্বাচনে জিতে আসতে হবে তাঁকে। জানা গিয়েছে, নভেম্বরে ছয় মাসের মেয়াদ ফুরিয়ে গেলে সরে দাঁড়াবেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিজের অবস্থানের কথা জানিয়েছেন অমিতবাবু। মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পর বিদেশে নিজের মেয়ের সঙ্গে কিছু সময় কাটানোর পরিকল্পনা করছেন অমিত মিত্র। এই পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ হতে চলেছে পরবর্তী অর্থমন্ত্রী বেছে নেওয়া।

তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় এসে মমতা ইচ্ছা প্রকাশ করেন যাতে অন্তত ছয়মাস অর্থমন্ত্রকের দায়িত্ব অমিত মিত্র সামলে দিন। প্রসঙ্গত, ২০১১ সাল থেকেই রাজ্যে অর্থনৈতিক স্বাস্থ্য থেকেছে অমিতবাবুর তত্ত্বাবধানে। সেই শুরু থেকে মমতার পাশে থেকেছেন। তাই এই জয়ের পরও অমিতবাবুকে পাশে চেয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে মন্ত্রিত্বের চাপ নেওয়ার মতো শারীরিক অবস্থায় নেই অনিতবাবু। এমনকি ৭ জুলাই তিনি নিজে বাজেট পেশ করতেও পারেননি।

অমিত মিত্র না থাকলে কে হবেন অর্থমন্ত্রী? সেটাই এখন বড়ো চিন্তার হয়ে দাঁড়িয়েছে শাসকদলের অন্দরে। সূত্রের খবর, অমিতের অনুপস্থিতিতে এই দপ্তরটি নিজের হাতেও রাখতে পারেন মমতা। সেক্ষেত্রে উপনির্বাচন পর্যন্ত এভাবেই পড়ে থাকবে বিষয়টি। অন্য কাউকে এই পদে বসানো যায় কিনা, তা নিয়েও আলোচনা চলছে।

অমিতবাবু নিজে মন্ত্রী না থাকলেও তাঁকে অর্থ দফতরের উপদেষ্টা পদে রাখা যায় কি না, তা নিয়েও মুখ্যমন্ত্রী বিবেচনার মধ্যে রয়েছে। এছাড়া অর্থনীতিবিদদের মতামত জানানোর জন্যে একটি মঞ্চ গঠন করা হবে। অভিজ্ঞ অফিসারদের নিয়ে তৈরি করা হবে ব্যবস্থা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.