BJP Kmc Abhijay: ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডের প্রতিবাদে কার্যত রণক্ষেত্র বিজেপির পুরসভা অভিযান,গ্রেফতার দিলীপ ঘোষ সহ বিজেপির অন্যান্য নেতৃত্ব

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডের প্রতিবাদে বিজেপির পুরসভা অভিযান আটকে গেল পুলিশের ব্যারিগেডের মুখে। পূর্ব পরিকল্পিত সময় ও স্থান অনুযায়ী, সোমবার হিন্দ সিনেমার সামনে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার থেকে শুরু করে পুরসভা পর্যন্ত হওয়ার কথা ছিল বিক্ষোভ মিছিল। পুলিশের অনুমতি না মিললেও ভুয়ো ভ্যাকসিনকাণ্ডের প্রতিবাদে পুরসভা অভিযানে অনড় ছিল বিজেপি। দিলীপ ঘোষ, সায়ন্তন বসু, সৌমিত্র খাঁ, অগ্নিমিত্রা পাল, লকেট চট্টোপাধ্যায় সহ দলের নেতা-নেত্রীরা উপস্থিত ছিলেন ওই প্রতিবাদ মিছিলে।

সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার থেকে শুরু করে সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে মিছিল ঢোকার পরই পুলিশের সঙ্গে শুরু হয় বিজেপি কর্মী সমর্থকদের ধস্তাধস্তি। এরপরই সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে ব্যারিগেড তৈরি করে পুলিশ। গ্রেফতার করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বিধায়ক মিহির গোস্বামী, বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পাল, সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়, বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু-সহ একাধিক বিজেপি নেতা-কর্মীকে। তাদেরকে প্রেসিডেন্সি জেলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

কার্যত রণক্ষেত্র সৃষ্টি হয় সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ চত্ত্বরে।বিজেপি নেতাদের সাথে ধস্তাধস্তিতে এক মহিলা বিজেপি কর্মী অসুস্থ হয়ে রাস্তায় শুয়ে পড়েন। পরে, তাঁকেও ভ্যানে করে নিয়ে যাওয়া হয়। মিছিলের সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়ার আর কেউ না থাকার কারনে কার্যত বিজেপির পুরসভা অভিযানকে ‘শেষ’ বলেই ধরে নিচ্ছে পুলিশ। ইতিমধ্যেই সরিয়ে ফেলা হয়েছে কিছু জায়গায় ব্যারিগেড।

এরই মাঝে দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেন ,”আমরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতীকী প্রতিবাদ করছিলাম। আমাদের কর্মসূচি শুরুই হয়নি। সবে কার্যালয় থেকে বেরিয়েছি। এরইমধ্যে আমাদের বিধায়ক-সাংসদদের পুলিশ তুলে নিয়ে যাচ্ছে। এটা গা জোয়ারি হচ্ছে।”

এ প্রসঙ্গে বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পল বলেন,” শান্তিপূর্ণ ভাবে এগিয়ে গেলেও পুলিশ তাঁদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করে এবং তাঁদের গ্রেফতার করা হয়।”

প্রসঙ্গত, জুনেই সামনে আসে কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ড। আর তাতেই সামনে আসে দেবাঞ্জন দেবের প্রতারণার সাতকাহন। এই ঘটনার পরই বিজেপি বেশ কয়েকটি ছবি প্রকাশ করে। যাতে দেখা যায় রাজ্যের নেতা-মন্ত্রীদের সঙ্গে রয়েছে দেবাঞ্জন। আর তারপর থেকে ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডকে হাতিয়ার করে শাসকদলের চাপ বাড়ানোর কৌশল বিজেপির। ইতিমধ্যেই ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবিতে সরব বিজেপি। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে চিঠিও পাঠিয়েছে বিজেপি। যদিও SIT গঠন করে দেবাঞ্জন দেবের এই কাণ্ডের তদন্ত চলছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.