দুর্গাপূজাতেও করোনার কাটা, উৎসবের মরশুমেও বিধিনিষেধ জারি রাখার নির্দেশ কেন্দ্র সরকারের

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: বাঙালির উৎসব শুরু হয় দুর্গাপুজোর মধ্যে দিয়ে। ফি বছর করোনার দাপটে প্রায় বন্ধের মুখে ছিল বাঙালির সর্ববৃহৎ এই পূজা। করোনা সংক্রমণের চোখ রাঙানো পরিসংখ্যান আশঙ্কা জাগাচ্ছে আগামীর উৎসব মরশুমে আয়োজন নিয়েও। একটা ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে আসতে পারে আবার কোনো বড় বিপর্যয়। তাই এই বছর উৎসবের মরশুমেও দেশজুড়ে করোনার বিধিনিষেধ চালু রাখার নির্দেশ দিল কেন্দ্র সরকার। বুধবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ প্রতিটি রাজ্যকে এই মর্মে চিঠি দেন। সেই চিঠিতে তিনি জানান, স্থানীয় উৎসবেও করোনার বিধিনিষেধ জারি রাখতে হবে রাজ্যগুলিকে। 

রাজেশ ভূষণ চিঠিতে লিখেছেন,”মহরম, ওনাম, গণেশ চতুর্থী, জন্মাষ্টমী ও দুর্গাপুজো যে রাজ্যগুলিতে প্রচলিত সেখানে করোনার বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে। না হলে করোনার সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে। কোভিড বিধি শিথিল করার কোনও প্রশ্ন নেই। আর তা হলে আমাদেরই ক্ষতি। সেকারণে রাজ্যগুলিকে আরও একবার মনে করিয়ে দিতে চাই, দেশের ও মানুষের স্বার্থে আমাদের করোনা বিধি মেনে চলতে হবে উৎসবের সময়ও।”

উল্লেখ্য, চলতি মাস থেকেই শুরু হতে চলেছে উৎসবের মরশুম। তবে এখনও শেষ হয়নি করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রকোপ। গাণিতিক মডেলের উপর ভিত্তি করে আইআইটি-র গবেষকরা জানিয়েছিলেন, এক থেকে দেড় লাখ মানুষ রোজ আক্রান্ত হতে পারেন। অক্টোবরে হয়তো শিখর ছোঁবে সংক্রমণ। এমতাবস্থায় উৎসবের মরশুমে দরকার বাড়তি সর্তকতার। বুধবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ প্রতিটি রাজ্যকে এই মর্মেই পাঠিয়েছেন চিঠি। তাঁর কথায়, Indian Council of Medical Research এবং National Centre for Disease control জানিয়েছে উৎসবের মরশুমে জমায়েত নতুন করে পরিণত হতে পারে সুপার স্প্রেডারে।

এবছরও পুজো করার জন্য একটি ফোরাম তৈরি হয়েছে। তাদের তরফে ১৪ দফার গাইডলাইন প্রকাশ করা হয়েছে। জোর দেওয়া হয়েছে টিকাকরণে। ইতিমধ্যেই ফোরামের তরফে রাজ্য সরকারের কাছে সেই গাইডলাইন প্রস্তাব আকারে পাঠানো হয়েছে। সরকারের থেকে সবুজ সঙ্কেত পেলেই পুজোর প্রস্তুতি শুরু করবে ফোরাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.