Cyclone Alert: ফের দক্ষিনবঙ্গে ঘূর্ণিঝড়ের হানা, রবিবার গাঙ্গেয় উপকূলে আছড়ে পড়বে ‘গুলাব’

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: রাজ্য জুড়ে লাগাতার বৃষ্টির মাঝে ফের একবার বিপর্যয়ের মুখে দক্ষিণবঙ্গ। ‘যশে’র’ পর এবার ‘গুলাব’। বঙ্গোপসাগরের থেকে ঘূর্ণাবতের জোড়া আঘাতে রবিবার বিকেলে থেকেই বিপর্যয়ের মধ্যে পড়বে দক্ষিণবঙ্গ। এই মুহূর্তে বঙ্গোপসাগরের উপরে রয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’।

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ এই মুহূর্তে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। রবিবার তা অতি গভীর নিম্নচাপের রূপ নেবে। এরপরই রবিবার সন্ধ্যায় ওড়িশা উপকূলে পৌঁছবে। গোপালপুর ও বিশাখাপত্তনমের মাঝে কলিঙ্গপত্তনম দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করবে সে। অন্যদিকে রবিবার-সোমবারের মধ্যে আরও একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হওয়ার কথা পূর্ব-মধ্য ও উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে। এটি ক্রমশ শক্তি বাড়িয়ে বাংলা ও বাংলাদেশ উপকূলে আসবে।

আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যেই তা ভয়াবহ আকার নিতে পারে বলে, জানিয়েছে হাওয়া অফিস। যার জেরে শনিবার থেকেই কলকাতা সহ একাধিক জেলায় তীব্র ঝড়ঝঞ্জা শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের আধিকারিকরা এ নিয়ে জরুরি বৈঠক শুরু করেছেন ইতিমধ্যেই। হাওয়া অফিস জানিয়েছে, এদিন কলকাতার উপর দিয়ে প্রতি ঘন্টায় ১২ কিলোমিটার গতিবেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে।

শনিবার থেকেই আবহাওয়ার পরিবর্তন টের পাবে বঙ্গবাসী। রবিবার থেকে শুরু হবে বৃষ্টি। রবিবার পূর্ব মেদিনীপুরে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের বাকি জেলাগুলিতেও হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। সোমবার ভারী বৃষ্টির সর্তকতা রয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগনায়।

মঙ্গলবারও ভারী বৃষ্টির সর্তকতা কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রামে। বাকি জেলাগুলিতেও বৃষ্টির পরিমাণ অনেকটাই বাড়বে।

ঝড়ের দাপট থেকে শহরবাসীকে নিরাপত্তা দিতে একটি বিশেষ টিম গড়েছে লালবাজার। ওই টিমে রয়েছেন কলকাতা পুরসভা, পূর্ত দফতর, দমকল ও CESC-র প্রতিনিধিরা। লালবাজার কন্ট্রোল রুমে গড়ে তোলা হয়েছে ‘ইউনিফায়েড কম্যান্ড সেন্টার’। কলকাতা পুলিশের তরফে ভবানীপুর, কালীঘাট, আলিপুর, ওয়াটগঞ্জ, একবালপুর, এই পাঁচটি এলাকায় NDRF-এর ২২টি টিম মোতায়েন করা হয়েছে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, ভারী বৃষ্টিপাতের জেরে নদীর জলস্তর বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। নিচু এলাকাগুলি প্লাবিত হতে পারে। কলকাতা শহরের নিচু এলাকাগুলি জলমগ্ন হয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.