‘উন্নয়ন ঘরে ঘরে, ঘরের মেয়ে ভবানীপুরে’,ভবানীপুর উপনির্বাচনের জন্য নতুন স্লোগান বাধল তৃনমুল

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল:একুশের নির্বাচনে মূলত ‘খেলা হবে’ ও ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’,স্লোগানে বাজিমাত করেছিল তৃনমুল। জয়লাভ করেছিল বিপুল সংখ্যক আসনে। এখানে নিজের মেয়ে বলতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই আবার মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসিয়েছেন রাজ্যবাসী। যেহেতু মুখ্যমন্ত্রী হলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচনী লড়াইয়ে জিততে পারেননি, তাই তাঁকে উপনির্বাচনে জিতে আসতে হবে। নিজের কেন্দ্র ভবানীপুর থেকেই উপনির্বাচন লড়বেন তিনি। ইতিমধ্যেই ভবানিপুরে উপনির্বাচনের জন্য নয়া স্লোগান বেঁধে ফেলেছে তৃণমূল। এবারে তৃণমূল নেত্রীর প্রচারের মন্ত্র – ‘উন্নয়ন ঘরে ঘরে, ঘরের মেয়ে ভবানীপুরে।’যা তৈরি হয়েছে তৃণমূলের শাখা সংগঠন জয়হিন্দ বাহিনীর উদ্যোগে।এই মন্ত্রেই নিজের মুখ্যমন্ত্রীর আসন টিকিয়ে রাখতে মরিয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত,গত ১০ বছর ধরে নিজের বাড়ির পাশে ভবানীপুর (Bhawanipore) কেন্দ্র থেকে লড়াই করেই রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের কুর্সিতে বসেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু ২০২১-এ স্বেচ্ছায় ভবানীপুর কেন্দ্র ছেড়ে মুখ্যমন্ত্রী লড়েছেন অন্যতম স্পর্শকাতর কেন্দ্র – নন্দীগ্রাম থেকে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিপক্ষ হিসেবে গেরুয়া শিবির লড়াইয়ের ময়দানে নামিয়েছিল সদ্য দলবদল করা শুভেন্দু অধিকারীকে। মমতাকে কয়েকশো ভোটে হারিয়ে দিয়ে নন্দীগ্রাম জয় ছিনিয়ে নিয়েছিলেন বিধানসভার বর্তমান বিরোধী দলনেতা।

সেপ্টেম্বরের মধ্যেই রাজ্যের পাঁচ বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হওয়ার কথা। এগুলির মধ্যেই রয়েছে ভবানীপুর। নন্দীগ্রামে পরাজিত হওয়ার পর এই কেন্দ্র থেকেই উপনির্বাচনে প্রার্থী হতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও রাজ্যে উপনির্বাচনের দিনক্ষণ এখনও ঠিক হয়নি। দ্রুত তা ঘোষণার দাবিতে একাধিকবার নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে তৃণমূল। সেপ্টেম্বরের গোড়ার দিকে হয়ত হতে পারে উপনির্বাচন। তবে তা যখনই হোক, প্রস্তুতি ভালভাবেই সেরে নিচ্ছে রাজ্যের শাসকদল। বিশেষত যে কেন্দ্রের প্রার্থী স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী, সেখানে তো বাড়তি নজর থাকবেই। নতুন স্লোগানটিই তার প্রমাণ। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.