Euro 2020: পেনাল্টি শুটআউটে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে হারিয়ে ইউরো কোয়ার্টার ফাইনালে সুইজারল্যান্ড

গতকাল পর্তুগাল ইউরো কাপ থেকে বিদায় নেওয়ার পর, আজ বিদায় নিল ফ্রান্স। তবে খেলার শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ছিল টানটান উত্তেজনা। ম্যাচ গড়ায় পেনাল্টি শুটআউটে। সেখানে পেনাল্টি মিস করলেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। আর সেইসঙ্গে সুইজারল্যান্ডের কোয়ার্টার ফাইনালের রাস্তা একেবারে নিশ্চিত হয়ে গেল। ঠিক যেন স্পেন-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচের অ্যাকশন রিপ্লে। ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে ৩-১ গোলে এগিয়ে থেকেও স্পেনকে অপেক্ষা করে থাকতে হয়েছিল ১২০ মিনিট পর্যন্ত।ম্যাচ চলে গিয়েছিল এক্সট্রা টাইম পর্যন্ত। তবুও শেষমেষ স্পেনের মুখেই হাসি ফুটল।

ফ্রান্স-সুইজারল্যান্ড ম্যাচের চিত্রনাট্যও অবিকল এক। বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স (France) এক গোলে পিছিয়ে থেকে একসময়ে এগিয়েও গিয়েছিল ৩-১ গোলে। সবাই ধরেই নিয়েছিলেন ফ্রান্স হাসতে হাসতে চলে যাবে ইউরো কাপের (Euro 2020) শেষ আটে। তখনই ম্যাচে প্রত্যাবর্তন সুইজারল্যান্ডের। অবিশ্বাস্য ভাবে ঘুরে দাঁড়ায় তারা। দুটো গোল করে সমতা ফিরিয়ে আনেন সেফেরোভিচ এবং মারিও। নির্ধারিত সময়ে খেলার ফল ছিল ৩-৩। পেনাল্টি শুট আউটে ৫-৪ গোলে ম্যাচ জেতে সুইজারল্যান্ড। ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে তাদের খেলতে হবে স্প্যানিশ ব্রিগেডের বিরুদ্ধে। আগামী ২ জুলাই এই দুটো দল একে অপরের মুখোমুখি হবে।

সুইজারল্যান্ডের (Switzerland) বিরুদ্ধে শুরুটা ভালো করেনি ফ্রান্স। সুইসদেরই দাপট ছিল গোড়ায়।৫৭ মিনিট পর্যন্ত পিছিয়ে ছিলেন গ্রিজম্যান-এমবাপেরা। তার পরেই ছোট্ট একটা ফরাসি ঝড় উঠল। দু’ মিনিটের ব্যবধানে জোড়া গোল করে ফেলেন করিম বেঞ্জিমা। বে়ঞ্জামিন পাভার্ডের অবৈধ ট্যাকল থেকে পেনাল্টি পায় সুইজারল্যান্ড। পেনাল্টি থেকে রিকার্ডো রডরিগেজ গোল করতে পারেননি। তাঁর দুর্বল পেনাল্টি বাঁচিয়ে দেন ফ্রান্সের গোলরক্ষক হুগো লরিস। এর পরেই ফ্রান্সের আগ্রাসন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.