নাম বদলাচ্ছে ফেসবুক,নয়া নামের অফিসিয়ালি ঘোষণা ২৮ অক্টোবর

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: নাম বদলাচ্ছে বিশ্বের বৃহত্তম সোশ্যাল সাইট ফেসবুক। ইতিমধ্যেই এর নতুন নাম কি রাখা হবে এটা নিয়ে শুরু হয়েছে জোর জল্পনা। আমেরিকান প্রযুক্তি সংক্রান্ত ব্লগ দ্য ভার্জ (The Verge)-এ মঙ্গলবার প্রকাশিত একটি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, ভাবমূর্তি বদলানোর জন্য ফেসবুকের নাম, লোগো বদলে নতুন কিছু আসতে চলেছে। আগামী ২৮ অক্টোবর সংস্থার কানেক্ট কনফারেন্সে (Connect conference) ফেসবুকের নতুন নাম ঘোষণা করতে চলেছেন সংস্থার চিফ একজিকিউটিভ অফিসার (Chief Executive Officer) মার্ক জুকারবার্গ (Mark Zuckerberg)। বেশ কয়েক মাস ধরেই মেটাভার্স নিয়ে আলোচনা শুরু করেছেন ফেসবুক প্রধান মার্ক জুকেরবার্গ। মেটাভার্সের মাধ্যমে পরবর্তীতে কোম্পানিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তের কারণেই নাম বদলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও এখনও পর্যন্ত এই গুঞ্জনকে উড়িয়েই দিয়েছে মার্ক জুকারবার্গের (Mark Zuckerberg) সংস্থা।

কিন্তু কেন নাম বদলানোর কথা ভাবছে ফেসবুক? আসলে সোশ্যাল মিডিয়া হিসেবে উত্থান হলেও ফেসবুকের কার্যকারিতা আর সেইটুকুর মধ্যেই কেবল সীমাবদ্ধ নেই। নানা ধরনের পরিষেবার দিকে এগিয়ে যেতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় সামাজিক যোগাযোগের এই মাধ্যম। তাই নাম বদলে এমন নাম নিতে চাইছে জুকারবার্গের সংস্থা, যা থেকে ফেসবুকের পরিবর্ধিত লক্ষ্যমাত্রার আভাস মেলে।

দ্য ভার্জের রিপোর্টে বলা হয়েছে, আগামী ২৮ অক্টোবর ফেসবুকের কানেক্ট কনফারেন্স। সেই দিনই নাম পরিবর্তনের বিষয়ে ফেসবুকের প্রধান মার্ক জুকারবার্গ আলোচনা করবেন বলে মনে করা হচ্ছে। এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সূত্র এমনটা জানিয়েছেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে দ্য ভার্জের রিপোর্টে। দ্য ভার্জে প্রকাশিত রিপোর্টে আরও জানানো হয়েছে, কোম্পানির অধীনে Facebook, Instagram, WhatsApp-এর ব্র্যান্ডগুলি পৃথকভাবে কাজ করতে থাকবে। তবে, এই রিপোর্ট সম্পর্কে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি Facebook।

মার্ক জুকারবার্গ ২০০৪ সালে এই সোশ্যাল নেটওয়ার্কের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তিনি একাধিক সাক্ষাত্কারে জানিয়েছিলেন যে, ফেসবুকের ভবিষ্যতে সাফল্যের চাবিকাঠি মেটাভার্স ধারণার মধ্যে নিহিত। মেটাভার্স ধারণাকে আরও একধাপ এগিয়ে যেতে এই রিব্র্যান্ডিং আরও কার্যকর হবে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.