ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’,আছড়ে পড়তে পারে সুন্দরবন উপকূলে

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: ২০২০ সালের মে মাসের ধ্বংসলীলা এখনও টাটকা । পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ উপকূলে ১৭০-১৮০ কিমি বেগে আছড়ে পড়েছিল ঘূর্ণিঝড় আমফান । তছনছ করে দিয়েছিল সবকিছু । এরই মাঝে আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানালো, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হচ্ছে গভীর নিম্নচাপের । নিম্নচাপ পরবর্তীতে ঘূর্ণিঝড়ের আকার ধারণ করবে । আগামী সপ্তাহে ২৩ থেকে ২৫ মে’র দিকে সুন্দরবন উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’,।’আগামী ২১ মে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হতে পারে নিম্নচাপ অক্ষরেখা”, এমনটাই জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর ।

উল্লেখ্য, গত বছর আমফান ঝড়ের তাণ্ডবে তছনছ হয়েছিল সুন্দরবন এলাকা। ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিল কলকাতাতেও। করোনা আবহে ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে সমস্যায় পড়েছিলেন বঙ্গবাসীরা। এবার করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে কাঁপছে বাংলা। এদিকে, আরব সাগরে তৈরি ঘূর্ণিঝড় ‘তাওকতে’ সদ্য দেশের একাংশে তাণ্ডব চালিয়েছে। অনেকে এখনও আগের ঝড়ের ক্ষয়ক্ষতির মোকাবিলা করে উঠতে পারেনি । এরই মাঝেই আবহাওয়া দফতরের এই খবরে ভয়ার্ত বাংলা বাসী ।

বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের জেরে বেড়ে গিয়েছে তাপমাত্রা । আজকে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রি ছুতে পারে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর ।

ভারতে’Tauktae’-র পর এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম ঘূর্ণিঝড় ২০২১ সালে। রাতভর মহারাষ্ট্র ও গুজরাটে তাণ্ডবলীলা চালালো ঘূর্ণিঝড় ‘Tauktae’। লন্ডভন্ড মুম্বই সহ উপকূলের এলাকাগুলি। মুম্বইয়ে অতি ভারী বৃষ্টি হয়। ঘণ্টায় ১১৪ কিমি বেগে বয়ে যায় ঝড়। সোমবার রাতে গুজরাটের সৌরাষ্ট্র উপকূলে ঘণ্টায় ১৮৫ কিমি বেগে আছড়ে পড়ে Tauktae’।  

Leave a Reply

Your email address will not be published.