“আমি লিডার নই, আমি ক্যাডার। আমি রাস্তায় লড়াই করি”সোনিয়া গান্ধীর সাথে সাক্ষাতের পর মমতার বার্তা

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: জোট বার্তা দিয়ে সনিয়া গাঁধী, রাহুল গাঁধীর সঙ্গে বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০২৪ সালে বিজেপি বিরোধী জোটের নেতা কে? এ প্রশ্নে সর্বাগ্রে ভেসে আসছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) নাম। কিন্তু বুধবার দিল্লিতে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক শেষে নেতৃত্বের সেই প্রসঙ্গ একপ্রকার এড়িয়ে গেলেন তৃণমূল নেত্রী। তাৎপর্যপূর্ণভাবে জানিয়ে দিলেন, ‘আমি লিডার নই, আমি ক্যাডার। আমি রাস্তায় লড়াই করি।”

অনেকের মতে নিজেকে ক্যাডার ও রাস্তার লোক উল্লেখ করে আসলে মোদি সরকার ও তামাম বিরোধী শিবিরকে বার্তা দিয়ে চেয়েছেন তৃনমুল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পর্যবেক্ষকদের মতে আসল উদ্দেশ্য হল বিজেপিকে পদচ্যুত করা। নিজেকে রাস্তার লোক বলেও আরেক বার্তা দিলেন তিনি। হতে পারে তিনি বর্তমানে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। তবে আজ থেকে ১২-১৩ বছর আগে বাংলা সহ গোটা দেশ তাকে যে ভূমিকায় দেখতে অভ্যস্ত ছিল,সেই ভূমিকার কথাই হয়তো বোঝাতে চেয়েছেন তিনি।

এদিনের বৈঠক শেষে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘রাহুল গান্ধীর উপস্থিতিতে সোনিয়াজির সঙ্গে বৈঠক ইতিবাচক হয়েছে। বিরোধীদের ঐক্য হওয়াটা খুবই জরুরি। বিরোধী জোট নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এছাড়া পেগাসাস ইস্যু নিয়েও কথা বলেছি।’

ইজরায়েলি স্পাইওয়্যার পেগাসাস ব্যবহার করে বিরোধীদের ফোনে আড়ি পাতা নিয়ে বুধবারও উত্তাল ছিল সংসদের বাদল অধিবেশন। সেখানে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেও সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে শামিল হতে দেখা গিয়েছে। বিজেপি-র অভিযোগ, ইচ্ছাকৃত ভাবে সংসদের অধিবেশন বানচাল করে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু মমতার প্রশ্ন, ‘‘সরকার পেগাসাস নিয়ে জবাব দিচ্ছে না কেন? মানুষ তো জানতে চাইছেন। সংসদে আলোচনা হবে না তো কোথায় হবে? চায়ের দোকানে? এটা কি চায়ের দোকানে আলোচনার বিষয়? সংসদে জবাব দিতে হবে সরকারকে।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published.