নদিয়ার চাপড়ায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ভারত-বাংলাদেশের ১৯৭১ এর যুদ্ধের প্রদর্শনী তুলে ধরলো বিএসএফ

নদীয়া: স্বর্ণ জয়ন্তী নামে নদীয়া জেলার সেক্টর হেডকোয়ার্টার থেকে নতুন একটি উদোগ নিলে বিএসএফ। ১৯৭১ এ পাকিস্থান থেকে বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছিলেন ভারত। তৎকালীন প্রধান মন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী সর্ব শক্তি দিয়ে সহযোগিতা করেন বাংলাদেশকে ভারত।

১৯৭১ যুদ্ধে যাপিয়ে পড়েছিলেন ভারতীয় সীমা সুরক্ষার বহু ভারতীয় জওয়ান এবং সেই যুদ্ধে শহীদ ও হয়েছিলেন। সময় যাবার সাথে সাথে ইতিহাস থেকে দূরে চলে গেছে এই বিশেষ দিনটি।

অনেকেই জানে না বাংলাদেশ স্বাধীন হবার পেছনে ভারতের সেনাবাহিনী ও সাধারণ মানুষের বলিদান। বি এস এফের তরফ থেকে সাধারণ মানুষের মধ্যে একটি এওয়ারনেস কর্মসূচি করে সাধারণ মানুষের মধ্যে সেই বার্তা তুলে ধরেন বলে জানান বিএসএফের ডিআইজি অম্বরিশ কুমার আরিয়া।

৩ রা ডিসেম্বর কলকাতা থেকে চালু করে চারটি চলমান মিউজিয়াম গাড়ী। আজ নদীয়া জেলার চাপড়ার সীমানগর থেকে ফের শুরু হয়ে এই র‍্যালি ২১ শে ডিসেম্বর গোহাটি গিয়ে শেষ হবে ।

চারটি গাড়িতে আছে ১৯৭১ এর যুদ্ধের নানা ঘটনার নথি ও ছবি। আজ এই গাড়ী গুলি বিভিন্ন বাজারে ও লোকালয়ে গিয়ে সাধারণ মানুষর মাঝে তুলে ধরছেন যে বাংলাদেশ স্বাধীনের পেছনে ভারতের কত অবদান আছে। এর পাশাপাশি বি এস এফ্ ও সাধারণ মানুষের মধ্যে সুসম্পর্ক তৈরির একটি প্রয়াস । এই অনুষ্ঠানটির নাম রাখা হয়েছে সর্ণ জয়ন্তী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.