Copa America Final: অবশেষে শাপমুক্ত মেসি,ব্রাজিলকে হারিয়ে কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: সমস্ত জল্পনা কাটিয়ে অবশেষে কোপা আমেরিকা মেসিদের দখলে। স্বপ্ন পূরণ হল মেসির। টানটান কোপা আমেরিকার ফাইনালে চির প্রতীদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারিয়ে ট্রফি জিতল লিওনেল মেসির দল। পূর্ণতা পেল ‘ফুটবল ঈশ্বরে’র কেরিয়ার। এই নিয়ে ১৫ বার কোপা চ্যাম্পিয়ন হল আর্জেন্টিনা। উরুগুয়ের পাশাপাশি কোপার সবচেয়ে সফল দল তারাই। ১৯৯৩ সালের পর প্রথমবার কোপা আমেরিকা(Copa America) জিতল আর্জেন্টিনা। ২০১৪ সালে এই মারাকানা স্টেডিয়ামেই জার্মানির কাছে ১-০ গোলে হেরে গিয়েছিলেন মেসিরা। সেই ক্ষত আজও দগদগে। অবশেষে আজ কাঙ্খিত জয়টা পেয়ে গেল আর্জেন্টিনা। ম্যাচের জয়সূচক গোলটা করেন অ্যাঞ্জেল দি মারিয়া।

ফাইনালে ম্যাচের প্রথম থেকেই খেলার উত্তেজনা ছিল চরমে। প্রথমে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা দুই দলই মাঝ মাঠের দখল নেওয়া ও প্রতিপক্ষকে বুঝে নিতে চেষ্টা করে। তবে গোলের মুখ খেলার জন্য নীল-সাদা ব্রিগেডকে বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়নি। ম্যাচের ২২ মিনিটেই লম্বা বাড়ানো বল থেকে ব্রাজিল গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে দৃষ্টি নন্দন গোল করেন অ্যঞ্জেল ডি মারিয়া। ২০০৪ সালের পর কোপা আমেরিকার ফাইনালে গোল করলেন কোনও আর্জেন্টিনার ফুটবলার।এই গোলই লিওনেল মেসির দলের দলের হয়ে ইতিহাস লিখে দিল। যে ব্রাজিল গোটা টুর্নামেন্টে ঝড় তুলেছিল, সেই ব্রাজিল আজ ফাইনালে কোথায় যেন হারিয়ে গেল।

ম্যাচের ১৫ মিনিটের মাথায় লিওনেল মেসি এবং নেইমার জুনিয়র দু’জনেই চোট পেয়ে মাঠের মধ্যে ছটফট করতে শুরু করেছিলেন। একদিকে ৪-৩-৩ ছকে যেখানে দল নামিয়েছেন স্কালোনি, সেখানেই তিতে ৪-২-৩-১ ছকে নিজেদের গুটি সাজিয়েছেন। আর্জেন্টিনার কিংবদন্তী ফুটবলার দিয়েগো মারাদোনার মৃত্যুর পর এই প্রথমবার কোনও মেজর টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলছে নীল-সাদা ব্রিগেড। এই ম্য়াচ জিতে তারা যে ফুটবলের রাজপুত্রকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করবে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।

৩৪তম মিনিটে ভালো জায়গায় ফ্রি-কিক পায় ব্রাজিল। তবে সামনে থাকা রক্ষণপ্রাচীরে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন নেইমার। প্রথমার্ধের বাকি অংশে গোল শোধের তাগিদ দেখা যায় ব্রাজিলের মধ্যে। ৪২তম মিনিটে বাম প্রান্ত থেকে এভারতনের নেওয়া শট আর্জেন্টিনার রক্ষণভাগে বাধা পাওয়ার পর অনায়াসে লুফে নেন ম্যাচে দারুণ খেলা আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্তিনেজ। পরের মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে রিচার্লিসন গোলমুখে ফেলেন অসাধারণ এক ক্রস। কিন্তু লুকাস পাকেতা ডাইভ দিয়েও বলে মাথা ছোঁয়াতে পারেননি।

বাকিটা সময়েও উত্তেজনা ছিল চড়া। ব্রাজিলের আক্রমণভাগের ধাক্কা সামলে স্নায়ুর পরীক্ষায় উতরে যায় আর্জেন্টিনা। শেষ বাঁশি বাজার সঙ্গে সঙ্গে তারা মাতে সীমাহীন উল্লাসের জোয়ারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.