এক হাত নেই বলে একসময় মানুষের বিদ্রুপের শিকার হওয়া পালক কোহলি আজ প্যারালিম্পিক্সে ভারতের প্রথম ব্যাডমিন্টন প্লেয়ার

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: এক কোহলি দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন বিশ্ব ক্রিকেটের দরবারে, আরেক কোহলি সদ্যই নিজের নাম লিখিয়েছেন প্যারাঅলিম্পিকসে। ব্যাডমিন্টন কোর্টে রীতিমত দাপট দেখান তিনিও। বছর আঠারোর জলন্ধরের পালক কোহলি, প্যারালিম্পিক্সের যোগ্যতা অর্জন করেছেন। প্যারাব্যাডমিন্টনে সর্বকনিষ্ঠ হিসাবে প্যারালিম্পিক্সের যোগ্যতা অর্জন করে ইতিহাস লিখে ফেলেছেন তিনি। পাশাপাশি ভারতের প্রথম ব্যাডমিন্টন প্লেয়ার হিসাবে প্যারালিম্পিক্সের যোগ্যতা পেয়েছেন। 

আমাদের মতো সাধারণ মেয়ে নয় পালক। সুন্দর,ছিমছাম চেহারার হলেও পালকের বাঁহাত কনুইয়ের নীচ থেকে নেই। জন্মের সময় থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধকতার শিকার ওই তরুণী। কথায় আছে ,’মনের জোর যে কোনও প্রতিকূলতাকে হার মানায়।’ সেই মনের জোরেই বিশেষভাবে সক্ষম ক্রীড়াবিদ হিসেবে ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়েছে পালক।

পলকের কথায়,’শুরুতে সকলের গঞ্জনা সহ্য করতে হতো। পরে অবশ্য ছবিটি বদলে যায়। প্রথম প্রথম সকলে যখন বলত খেলাধুলো আমার জন্য নয়, তখন খুব আত্মবিশ্বাসে ধাক্কা লাগতো! পরে অবশ্য নিজের ওপর বিশ্বাস আরও শক্ত হয়। আমি খুশি, উত্তেজিত আর গর্বিত নিজের শারীরিক অক্ষমতা নিয়ে। বিশেষভাবে সক্ষম হওয়ার জন্যই আমি আজ দেশের প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়েছি। আমার অনেক কিছু প্রমাণ করার ছিল। বিশ্বকে দেখিয়ে দিতে চেয়েছিলাম আমি কী পারি। বিশেষভাবে সক্ষমদের জন্য কোনও কিছুই অসম্ভব নয়।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.