Bhabanipur By-election: ভবানিপুর উপনির্বাচন মামলার রায়দান স্থগিত রাখলো হাইকোর্ট, কমিশন ও মুখ্যসচিবের ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ বিচারপতির

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: ভবানীপুর উপনির্বাচন নিয়ে দায়ের করা মামলার রায়দান স্থগিত রাখলো কলকাতা হাইকোর্ট। এদিন নির্বাচন কমিশন ও রাজ্য সরকার উভয়ের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল। এমনকি, কেন ভবানিপুরেই শুধু উপনির্বাচন তা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে সেই প্রশ্নের কোনো উত্তরই দিতে পারেনি নির্বাচন কমিশনের আইনজীবী। যা নিয়ে ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি।

এদিন মামলার শুনানি চলাকালীন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘মুখ্যসচিব কী উদ্দেশ্য কমিশনকে চিঠি লিখেছিলেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়।  মুখ্যসচিব কেন চিঠিতে সাংবিধানিক সঙ্কটের উল্লেখ করেছেন, তারও কোনো কারণ তিনি ব্যাখ্যা করেননি। একটি বিধানসভায় সাংবিধানিক সঙ্কট হলে, বাকিগুলির জন্য কেন নয়? একটা নির্বাচন করাতে কত টাকা খরচ হয়! দেশজুড়ে প্রার্থীরা একটি আসনে জিতছেন, ছাড়ছেন, আবার ভোট হচ্ছে।’ তিনি নির্বাচন কমিশন ও রাজ্য সরকারকে প্রশ্ন করেন জনগন কেন এত টাকা দেবেন?

উল্লেখ্য, ভবানীপুরে উপনির্বাচন না হলে সাংবিধানিক সংকট তৈরি হবে বলে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছিলেন মুখ্যসচিব দ্বীনেশ দ্বীদেবী। কারণ, এই কেন্দ্রে লড়ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তাই ৬ মাসের মধ্যে ভোট না হলে বড়সড় সংকট হবে। মুখ্যসচিবের উল্লিখিত আবেদনকে গুরুত্ব দিয়ে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ওই কেন্দ্রে উপনির্বাচনের বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল নির্বাচন কমিশন।

এদিন মামলার প্রথম অংশের শুনানি শেষ করে দেন বিচারপতিরা। রায়দান স্থগিত রাখেন। সূত্রের খবর, দ্বিতীয় ভাগ অর্থাৎ ভোটের খরচ সংক্রান্ত শুনানি চলবে। কমিশন এই সংক্রান্ত হলফনামা দেওয়ার পর তা খতিয়ে দেখে গোটা মামলার রায়দান হওয়ার সম্ভাবনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.