Santanu Sen Suspend: রাজ্যসভার বাদল অধিবেশনে সাসপেন্ড করা হল তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেনকে

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: রাজ্যসভার বাদল অধিবেশনে সাসপেন্ড করা হল তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেনকে। বাদল অধিবেশনে আর যোগ দিতে পারবেন না শান্তনু। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার রাজ্যসভার অধিবেশন চলাকালীন কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের হাত থেকে রিপোর্টের কাগজ ছিনিয়ে তা ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ ওঠে তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেনের বিরুদ্ধে। শুরু হয় জোর বিতর্ক। শুক্রবার সাংসদ শান্তনু সেনকে সাসপেন্ডের জন্য রাজ্যসভার চেয়ারম্যানের কাছে দাবি জানায় শাসক শিবির। এরপরই কড়া পদক্ষেপ করেন রাজ্যসভার অধ্যক্ষ বেঙ্কাইয়া নাইডু। গোটা বাদল অধিবেশনের জন্য তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেনকে সাসপেন্ড করেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান।

আজ অর্থাত্‍ শুক্রবার সকালে রাজ্যসভার নেতা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গয়াল দেখা করেন রাজ্যসভার স্পিকার তথা উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডুর সঙ্গে। ওই বৈঠকে রাজ্যসভায় সরকারপক্ষের সহকারী দলনেতা মুখতার আব্বাস নকভি এবং সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী ভি মুরলীধরণও হাজির ছিলেন। এরপর অধিবেশন শুরুর পরে শান্তনুর শাস্তির সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন বেঙ্কাইয়া। এদিন বেঙ্কাইয়া নাইডু বলেন,”অগণতান্ত্রিক এবং অসংসদীয় আচরণের জন্য অভিযুক্ত সাংসদের বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।”

শান্তুনুকে সাসপেন্ডের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরে তৃণমূলের রাজ্যসভার নেতা ডেরেক ও’ব্রায়েনের অভিযোগ, ‘বৃহস্পতিবার কাগজ ছেঁড়ার ঘটনার পরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিংহ পুরী নিজের আসন ছেড়ে শান্তনুর দিকে তেড়ে গিয়েছিলেন। অসংসদীয় বাক্যও প্রয়োগ করেছিলেন। ডেরেকের প্রশ্ন, ‘‘অন্য অভিযুক্ত (হরদীপ) কেন ছাড় পেলেন?’’ তৃণমূল-সহ বিরোধীদের হট্টগোলের জেরে শুক্রবারও মুলতবি হয় রাজ্যসভার অধিবেশন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.