ত্রিপুরায় ‘খেলা হবে’ দিবসের পর এবার রাখিবন্ধন পালন করবে তৃনমুল

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: খেলা হবে দিবসের পর ত্রিপুরায় রাখিবন্ধন উৎসবে মাতবে তৃনমুল। ত্রিপুরার প্রায় প্রত্যেকটি জেলাতেই রাখিবব্ধন উৎসব পালন করা হবে বলে তৃনমুল সূত্রে খবর। বঙ্গে তৃণমূল এই উৎসব পালন করে আসছে অনেক দিনই। কিন্তু ত্রিপুরার নির্বাচনকে (Tripura Polls) সামনে রেখে একেবারে কোমর বেঁধে নেমেছে তৃণমূল। তৃনমুল সূত্রে খবর, রবিবার রাখিবন্ধনের দিন একেবারে রাস্তায় নেমে পথচলতি সকলকে রাখি পরানো হবে।

উল্লেখ্য, আগামিকাল রাখি বন্ধন উৎসব পালিত হবে গোটা দেশে। আর এই উৎসবকে হাতিয়ার করেই ফের ত্রিপুরায় ঝাঁপাতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। রাখি বন্ধন উৎসবকে কেন্দ্র করে নতুন পরিকল্পনাও সাজিয়ে ফেলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারই প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে শনিবার থেকেই। তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee) ও দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের(Abhishek Banerjee) ছবি দেওয়া ব্যানার ইতিমধ্যেই তৈরি করা হয়েছে। যা ত্রিপুরা রাজ্যের(Tripura TMC) সর্বত্র ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

সূত্রের খবর, স্থানীয় নেতৃত্বের পাশাপাশি রবিবারের রাখিবন্ধন উৎসবে হাজির থাকবেন তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন। তবে তৃণমূল কংগ্রেস চাইছে ছাত্র সংগঠনের সদস্যদের সাথে নিয়েই এগোতে। যে ব্যানার ত্রিপুরা তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে তৈরি করা হয়েছে সেখানে উল্লেখ রয়েছে, “বন্ধন সৌভাতৃত্বের, বন্ধন হোক রক্ষার, বন্ধন হবেই শান্তির রাখি পূর্ণিমার।”

প্রসঙ্গত বলা যায়, ত্রিপুরায় সবরকমভাবে দলকে নানা কর্মসূচির মধ্যে রাখতে চাইছে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। ত্রিপুরায় তিন দফায় নানা কর্মসূচি করতে গিয়ে হামলার মুখে পড়তে হয়েছে তৃণমূলকে। একেবারে শেষ পর্বে দুই সাংসদ দোলা সেন, অপরূপা পোদ্দাররা দলের ‘খেলা হবে’ দিবসের কর্মসূচি করতে গিয়ে আক্রান্ত হন। গান্ধী মূর্তির পাদদেশে বিক্ষোভও দেখান তৃণমূল সাংসদরা। এর পরের কর্মসূচি হিসাবেই রাখিবন্ধন উৎসবকে সামনে রাখা হচ্ছে।

ত্রিপুরার তৃণমূল কংগ্রেস নেতা আশিষলাল সিংহ জানিয়েছেন, “রাখি বন্ধন একটা উৎসব(Raksha Bandhan)। আমরা সকলের সঙ্গেই আনন্দ ভাগ করে নিতে চাই৷ দলকে লাগাতার কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে যেতে হবে। ছাত্র-যুবদের গ্রহণযোগ্যতা সব থেকে বেশি। তাই সকলকে সাথে নিয়েই আমরা রবিবার আগরতলা সহ সর্বত্র রাখি উৎসব পালন করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.