রাস্তায় কেন লকডাউনে? যুবকের ফোন আছড়ে ফেললেন ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট।ভাইরাল ভিডিও

নদীয়া নিউজ ২৪ ডিজিটাল: করোনা মোকাবিলায় লকডাউন করেছে দেশের বেশির ভাগ রাজগুলি । এছাড়াও নেওয়া হচ্ছে নানাবিধ ব্যাবস্থা । সরকার বারংবার রাজ্যবাসীর কাছে অনুরোধ করছেন লকডাউনকে সফল ভাবে পালন করার । তবুও এক শ্রেণীর মানুষ মানছেন না এই লকডাউনকেও । কোনো প্রকার কারণ ছাড়াই বেরিয়ে যাচ্ছেন বাড়ির বাইরে । রাস্তায় বেরিয়ে কেউ কেউ পরে যাচ্ছেন পুলিশের সামনে । সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে নানা ভিডিও ।

শনিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভাইরাল ভিডিয়োয় দেখা যায়, লকডাউনের মধ্যে এক যুবককে আটকেছেন সুরজপুরের কালেক্টর রণবীর শর্মা এবং পুলিশকর্মীরা। পরে নিজের গাড়ির দিকে এগিয়ে যান ডিস্ট্রিক্ট কালেক্টর। কিন্তু গাড়িতে না উঠে ফিরে আসেন। যুবকের থেকে ফোন চেয়ে তা মাটিতে আছড়ে ফেলেন। সঙ্গে সপাটে থাপ্পড় মারেন। তাঁর সঙ্গে থাকা পুলিশকর্মীদেরও ওই যুবককে মারতে বলেন। লাঠি দিয়ে যুবককে কয়েক ঘা মারতেও দেখা যায়। ভিডিয়ো ভাইরাল হতেই তড়িঘড়ি ক্ষমা চেয়ে নিলেন ওই ডিস্ট্রিক্ট কালেক্টর। ঘটনাটি ছত্তিশগড়ের সুরজপুরের।

ভিডিওটি ভাইরাস হবার পর থেকেই নানা মহলে নানা প্রশ্ন উঠতে থাকে । কেউ বলেন,ছেলেটা ওষুধ আনতে বাড়ি থেকে বের হয়েছিল,কাগজ দেখানো সত্ত্বেও তাকে মারা হয়েছে ।কেউ আবার দাবি করেছেন ১৩ বছরের যুবকের গায়ে হাত দেওয়ার অপরাধে ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট কে সাসপেন্ড করা হোক ।

যদিও সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ডিস্ট্রিক্ট কালেক্টর। তিনি বলেন, ‘ওই যুবক টিকাকরণের জন্য বেরিয়েছিলেন। কিন্তু কোনও উপযুক্ত কাগজপত্র ছিল না। পরে তিনি বলেন যে ঠাকুমার কাছে যাচ্ছেন। বাজে ব্যবহার করতে মাথা গরম হয়ে গিয়েছিল, তারপর থাপ্পড় মেরেছি। ওঁর বয়স ২৩ বা ২৪, ১৩ নয়।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.